হামলাকারীদের খুঁজে অাইনের অাওতায় অানা হবে : হাছান মাহমুদ

Breaking News: প্রধান সংবাদ বাংলাদেশ রাজনীতি

সাংবাদিকসহ সবাইকে যারা হামলা করেছে তাদেরকে খুঁজে বের করে অাইনের অাওতায় অানা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অাওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। অাজ ( বুধবার) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় তিনি সাংবাদিকদের দাবির সাথে একাত্মতা পোষণ করেন। বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৮ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এ অালোচনা সভার অায়োজন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট।

হাছান মাহমুদ এ সময় বলেন, অাগস্ট মাস বাঙালির জন্য শোকের মাস। এ বছরও অাগস্ট মাসে বিশেষ পরিস্থিতি তৈরী করার জন্য একটি কুচক্রী মহল চেষ্টা করেছে। সড়ক দূর্ঘটনা কে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক সময়ে গড়ে উঠা ছাত্র অান্দোলন কে ইঙ্গিত করে হাছান মাহমুদ বলেন, স্কুলের ছাত্ররা যে অান্দোলন গড়ে তুলেছিল অামরা তাদের সমর্থন দিয়েছিলাম। কিন্তু পরে দেখলাম অান্দোলনে বিভিন্ন বয়সের কোমলমতিরা জামাত- বিএনপি’র এজেন্ট হয়ে ঢুকে পড়েছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, এখন ১৪ কোটি মানুষের হাতে ক্যামেরা। কোন কিছু লুকোনোর সুযোগ নেই। ফলে দেখা গেল অামীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মাহমুদ রহমান মান্না এরা সবাই কোমলমতিদের উস্কানি দিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছে। অাবার কিছু কিছু অভিনেত্রী এমন অভিনয় করলেন যেন সবকিছু নিজের চোখের সামনে দেখতে পাচ্ছেন। হাছান মাহমুদ অভিনেত্রী কাজী নওশাবাকে ইঙ্গিত করে বলেন, অাপনারা নাচ গান করেন। তা নিয়ে থাকতেন। অাপনারা কেন কোমলমতি সাজতে গেলেন। গুজব রটনাকারী এসব অভিনেত্রীদের পেছনে কারা অাছে তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান অাওয়ামীলীগের মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ।

অাজকের এ অালোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন অায়োজক সংগঠনের সভাপতি লায়ন চিত্তরঞ্জন দাশ। সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানার সঞ্চালানায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী এড. কামরুল ইসলাম।

সাবেক মন্ত্রী হাছান মাহমুদ এ সময় বলেন, ছাত্রদের এ অান্দোলন ব্যর্থ হওয়ায় একটি মহল হতাশ। ওরা কারা? ওরা এক- এগারোর কুশীলব। এদের নেতা ড. কামাল হোসেন। ওয়ান ইলেভেনের প্রেক্ষাপট স্মরণ করেন হাছান মাহমুদ বলেন, ড. কামাল হোসেন ওয়ান ইলেভেনের সময় বিবৃতি দিয়ে বলেছিলেন, এ সরকার যতদিন ইচ্ছা ততদিন ক্ষমতায় থাকতে পারবে। ওনাদেরকে লজ্জা দিতে চাইনা। ওনাদের লজ্জা না থাকলেও অামার তো লজ্জা অাছে।

হাছান মাহমুদ হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেন, অাওয়ামী লীগ ভীমরুলের চাক। কেউ ঢিল মারলে সবাই একসাথে বের হই। নেত্রী বার বার নিষেধ করেছেন বিধায় অামরা শান্ত অাছি।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, সাংবাদিক নেতা মোল্লা জালাল, অাবু জাফর সূর্য, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এড. বলরাম পোদ্দার, অভিনেত্রী অরুনা বিশ্বাস, কণ্ঠশিল্পী এসডি রুবেল প্রমুখ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *