‘স্তন দেখালেই সাহসী হওয়া যায় না’

Breaking News: বিনোদন

ভারতীয় বাঙালি মডেল এবং অভিনেত্রী স্বস্তিকা বিষ্ফোরক মন্তব্য করেছেন। তার এই মন্তব্য নিয়ে ভারত জুড়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। আর আলোচনা-সমালোচনা বাংলাদেশের মিডিয়াতে এখন হচ্ছে। পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের শাহজাহান রিজেন্সি’ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে প্রেম, সাবেক প্রেমিক আর নিজের উত্তরণের কথা বললেন তিনি। ভারতীয় জনপ্রিয় দৈনিক আনন্দবাজারে তিনি এক সাক্ষাৎকার দেন। সেখানেই তিনি বলেন, শুধু স্তন খুলে দেখালেই সাহসী হওয়া যায় না। মঙ্গলবার তিনি এই সাক্ষাৎকার দেন।

আসলে ছবিটা দেখলে বিষয়টা বোঝা যাবে। আমি কোনো দিন নিজেকে রিপিট করব না। এটা আগেও বলেছি। ‘শাহজাহান রিজেন্সি’-র চিত্রনাট্যটা যখন সৃজিত (পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়) পড়ে শোনায়, খুব ভালো লেগেছিল। কমলিনীর চরিত্র শুনে মনে হয়েছিল সারা জীবনে একজন অভিনেত্রী এমন চরিত্র আর নাও পেতে পারে! অদ্ভুত একটা জৌলুস আছে। আর আছে বেদনা। অভিনয়ের দিক থেকে খুব শক্ত চরিত্র।
এই সিনেমা আমার চরিত্র- আমরা ভাবি একজন হস্টেস কেবল দেহ বিক্রিই করে। একজন হস্টেস তার ক্লায়েন্টকে সেক্সুয়ালি এন্টারটেন করা ছাড়া আর কী করবে? এটা ভুল। ছবিতে কমলিনীর কাছে লোকে মগজের জন্য আসে। কমলিনীর ক্ষেত্রে সেক্সুয়াল অর্গাজমের সঙ্গে সঙ্গে ইন্টেলেকচুয়াল অর্গাজম খুব গুরুত্বপূর্ণ। লোকে সে জন্যও আসে ওর কাছে। ওর অসম্ভব পড়াশোনা আছে। নেরুদা থেকে স্টকমার্কেটের বিষয়, খেলোয়াড়দের নাম…যে কোনোও আলোচনায় কমলিনী মেধার উজ্জ্বল মুখ। ওর ইমোশনাল গ্রাফটা পুরো পয়েন্টেড। কখনও পাঁচ তো কখনোও নব্বই। ভীষণ ডিগনিফায়েড চরিত্র।

এটা দেখার জন্য ছবিটা দেখতে হবে। আমি সৃজিত, ওর ইউনিটের লোক সকলেই ভাবতাম, এ রকম একজন নারীর পরিণতি এত মর্মান্তিক কেন হবে? আসলে এখানে খুব গুরুত্বপূর্ণ কথা বলতে চাই। আমরা সবসময় বলি যারা আত্মহত্যা করে তারা কাপুরুষ। ভীতু। এসব বড় বড় ডায়লগ বলে কোনো লাভ নেই। মানুষ এমন এক মানসিক পরিস্থিতিতে পৌঁছায়, এমন যন্ত্রণা পায় যে, সেই মুহূর্তে সুইসাইড করে। কেউ এক মাস ধরে প্ল্যান করে মরে না। আর যারা প্ল্যান করে তারা কোনো দিন মরে না। আমি এই বিষয়টা নিয়ে পড়াশুনা করেছি বলেই বলছি, যারা গায়ে আগুন দিয়ে মৃত্যু চায় তারা আগুন লাগার পর মুহূর্তেই কিন্তু দরজা খুলে বেরোতে চায়।

তার এই কথা নিয়ে এখন বেশ আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *