সৌদির সেই তরুণী কানাডায় আশ্রয় পেয়েছেন

Breaking News: আন্তর্জাতিক এশিয়া প্রধান সংবাদ

সৌদি আরবের সেই তরুণী কানাডায় আশ্রয় চেয়েছেন। তিনি বলেছেন, তার দেশে ফেরে গেলে তাকে বন্দি করা হবে এবং তার পরিবার তার ওপর নির্যাতন করবে। এ জন্য তিনি কানাডায় আশ্রয় চান।
১৮ বছরের সৌদি এই তরুণী এখন ব্যাংককে অবস্থান করছেন। তিনি জানান, তিনি দেশে ফিরতে চান না। এ জন্য আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আর্কষণ করেছেন তিনি। তার পরিবার কুয়েতে অবস্থান করছে তার জন্য।

কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, কানাডা সব সময় মানবাধিকারে পক্ষে। এ জন্য তারা মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করবেন।
কানাডার প্রধানমন্ত্রী জার্স্টিস টুডো বলেছেন, তার দেশ তার আবেদন গ্রহণ করেছেন। মানবাধিকার রক্ষায় কানাডা সব সময় বদ্ধপরিকর।

সৌসি তরুণী কুনন বিবিসিকে বলেন, তার পরিবার তাকে হত্যা করতে পারে। তিনি আরও বলেছেন, আমার দেশে গেলে আমি মুক্তভাবে পড়াশোনা করতো পারবো না এবং মুক্তভাবে চলাচল করতে পারবো না। তাই আমি দেশে ফিরতে চাই না।

সৌসি তরুণী আরও দাবি করেন, চুল কাটার অভিযোগে তাকে ছয় মাস ঘরের মধ্যে বন্দি করে রাখা হয়েছিল। এর জন্য তাকে অনেক নির্যাতন করা হয়েছে। জাতিসংঘের উদ্বাস্তু সংস্থা বলেছেন, কানাডায় তার আশ্রয়ের আবেদন গ্রহণ করেছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *