সোনার দাম বাড়ার নেপত্বে

প্রধান সংবাদ বাণিজ্য

আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দাম বাড়লে তার প্রভাব পড়ে দেশের বাজারে। স্থানীয় বাজারে সোনার দাম বাড়ার এটি একটি অন্যতম কারণ। আন্তর্জাতিক বাজারে ডলারের দাম অনেক সময় বাড়তি থাকলে দেখা যায়, সোনার দাম হয় নিম্নমুখী। আবার এমনও দেখা যায়, ডলারের দাম নিম্নমুখী হলে সোনার দাম হয় ঊর্ধ্বমুখী। ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে ডলারের দাম বাড়া বা কমার প্রভাব পড়ে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের স্থানীয় বাজারে। অবশ্য আন্তর্জাতিক বাজারে যখন টাকার মান কমে যায়, তখনও স্থানীয় বাজারে সোনার দাম বেড়ে যায়। এছাড়া, শীত মৌসুমে দেশে বিয়েসহ বিভিন্ন পারিবারিক অনুষ্ঠান বেশি হওয়ায় সোনার চাহিদা বেড়ে যায়। পূজা, ঈদসহ বিভিন্ন পার্বণেও চাহিদা বেশি থাকায় সোনার দাম বাড়ে।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) সভাপতি গঙ্গা চরণ মালাকার বলেন, বিশ্ব বাজারে ডলারের দাম যখন পড়ে যায়, তখন সোনার দাম বাড়তে থাকে। কারণ, বিশ্ব বাজারে ডলারের মতো সোনাও একটি কারেন্সি বা মুদ্রা। বিভিন্ন দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক সোনা ও ডলার দুটোই কিনে রাখে এবং ব্যবসা করে। বর্তমানে ভারত, সিঙ্গাপুর, ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বড় বড় দেশগুলোতে ডলারের দাম পড়ে গেছে। ফলে চীনসহ বিভিন্ন দেশে অনেকেই ডলার বিক্রি করে সোনা কিনতে শুরু করেছে। এতে সোনার চাহিদা বেড়ে গেছে। ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দামও বাড়ছে।

দেশে ডলারের দাম বাড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাংলাদেশ এক্ষেত্রে উল্টো চলছে। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দাম বাড়ছে, সে কারণে দেশের বাজারেও সোনার দাম বাড়ছে।

বাংলাদেশে ডলারের দাম ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার পরও সোনার দাম বাড়া প্রসঙ্গে গঙ্গা চরণ মালাকার বলেন, পাশের দেশ ভারতে সোনার দাম বাড়ার কারণে দেশের বাজারেও সোনার দাম বেড়ে গেছে। যদিও বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে ডলারের দাম ঊর্ধ্বমুখী। সেই হিসাবে সোনার দাম কমার কথা থাকলেও ভারতের প্রভাব বাংলাদেশে পড়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে একবছরে ডলারের দাম বেড়েছে চার টাকা। গত বছর ১৭ জানুয়ারি একডলারের দাম ছিল ৭৮ দশমিক ৯০ টাকা, আর এ বছরের ১৭ জানুয়ারি তা বিক্রি হয়েছে ৮২ দশমিক ৮৪ টাকায়।

এর আগে গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর থেকে প্রতি ভরি ২২ ক্যারেট সোনার দাম একহাজার ৪০০ টাকা বাড়িয়েছিল বাজুস। গত ২৬ নভেম্বরও সোনার দাম বাড়িয়েছিলেন ব্যবসায়ীরা। বাজুস নেতাদের মতে, আন্তর্জাতিক বাজার থেকে দেশের ব্যবসায়ীরা সোনা কিনতে পারছেন না। প্রবাসী বাংলাদেশিদের কাছ থেকে সংগৃহীত সোনা দিয়ে দেশীয় বাজারের চাহিদা মেটাতে হচ্ছে। ফলে দেশে চাহিদার বিপরীতে প্রয়োজনীয় যোগান হচ্ছে না। এর ফলে স্থানীয় বাজারে সোনার দাম বাড়ছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *