সিঙ্গেল ডিজিটে নামছে ব্যাংকের সুদের হার

Breaking News: অর্থনীতি বিবিধ

বাংলাদেশে ব্যাংকের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে আনার জন্য অনেক দিন ধরে চেষ্টা করে যাচ্ছে। কিন্তু ব্যাংকগুলো এই নিয়ম অনেকটা মানছিলেন না। বিশেষ করে বেসরকারি ব্যাংকগুলো এ নিয়মকে তোয়াক্কা করছেন না। এবার ব্যাংক ঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। রূপালী ব্যাংক ছাড়া রাষ্ট্রায়ত্ত সব ব্যাংকই এখন সিঙ্গেল ডিজিট সুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ বিতরণ করছে বলে জানা গেছে।

একইভাবে ডজনখানেক বেসরকারি ব্যাংকও সিঙ্গেল ডিজিট সুদে দীর্ঘমেয়াদি বৃহৎ ঋণ বিতরণ করছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

বিশেষ করে ব্যবসায়ী মহল দীর্ঘ দিন ধরে দাবি করে আসছে, বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো কম সুদে সহজে ঋণ দিতে চায় না। এবার সিঙ্গেল ডিজিটে ঋণ দিতে যাচ্ছে প্রায় সব ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী গত জানুয়ারি মাসে সিঙ্গেল ডিজিট সুদে দীর্ঘমেয়াদি বৃহৎ ঋণ বিতরণ করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত অগ্রণী ব্যাংক। পাশাপাশি ব্যাংকটি স্বল্পমেয়াদি ঋণও সিঙ্গেল ডিজিট সুদে বিতরণ করেছে।

গত জানুয়ারিতে সোনালী, জনতা ও বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (বিডিবিএল) সিঙ্গেল ডিজিট সুদে বিতরণ করেছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে। তবে কনজুমার ক্রেডিট ঋণে এই ব্যাংকগুলো দুই অঙ্কের সুদে ঋণ বিতরণ করেছে।

অবশ্য রাষ্ট্রায়ত্ত বেসিক ব্যাংক সিঙ্গেল ডিজিট সুদে দীর্ঘমেয়াদি বড় ঋণ বিতরণ করলেও ক্ষুদ্র শিল্প ও গৃহ ঋণে দুই অঙ্কের সুদ আরোপ করেছে। বিশেষায়িত ব্যাংক হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক সব ধরনের ঋণে সিঙ্গেল ডিজিট সুদারোপ করেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে অধিকাংশ ব্যাংকই শিল্পের মেয়াদি ঋণে অথবা চলতি মূলধন ঋণে সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়েছে।

সিঙ্গেল ডিজিট সুদের বিষয়ে ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান ও ঢাকা ব্যাংকের এমডি সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, বিএবির ঘোষণা অনুযায়ী সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নেমে আসছে। সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনতে আমরা সবাই চেষ্টা করছি।

গত বছরের ২০ জুন ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার ঘোষণা দেয় বেসরকারি ব্যাংক মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি)। এই সিদ্ধান্ত গত বছরের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হওয়ার কথা ছিল।

এক বছর আগেও যেসব ব্যাংকের দীর্ঘমেয়াদি ঋণের সুদহার ছিল দুই অঙ্কের ঘরে, তারাই এখন এই ঋণ দিচ্ছে ৯ শতাংশ সুদে। বেশ কিছু ব্যাংক স্বল্পমেয়াদি ঋণও দিচ্ছে এক অঙ্কের সুদে। তবে অধিকাংশ ব্যাংকই ভোক্তা ঋণ, এসএমই ঋণ দুই অঙ্কের সুদ আরোপ করছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়।

গৃহ ঋণ ও কনজুমার ক্রেডিট খাতে দুই অঙ্কের সুদারোপ করলেও শিল্পের মেয়াদি ঋণে ও চলতি মূলধন ঋণে সুদহার এক অঙ্কে নামিয়ে এনেছে বেসরকারি ৯টি ব্যাংক বলে দাবি করছে বাংলাদশ ব্যাংক। বেসরাকরি ব্যাংকগুলো হলো- বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক (বিসিবিএল), ঢাকা ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক, আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক,শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, সীমান্ত ব্যাংক ও সিটি ব্যাংক এনএ (বিদেশি)।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিসেম্বর মাসের তথ্য অনুযায়ী ৯ শতাংশ বা এর থেকে এর নিচে ঋণ বিতরণ করে মাত্র ৪টি ব্যাংক। অন্যদিকে, ১০ শতাংশের বেশি গড় সুদহার রয়েছে এমন ব্যাংকের সংখ্যা মোট ২৯টি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *