‘মামুন পেশাদারী জায়গায় সচেতন ছিল’

বাংলাদেশ রাজনীতি

সদ্য প্রয়াত সাংবাদিক মামুনুর রশীদ পেশাদারী জায়গায় সচেতন ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ। তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে নানা মত-পথ ও প্রতিযোগিতা থাকলেও মামুন সাংবাদিকতার জায়গা থেকে মামুন নিরপেক্ষ থাকতো।

আজ শনিবার টিএসসি ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে এক শোকসভায় তিনি এসব কথা বলেন। একুশে টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার মামুনুর রশীদের মৃত্যু উপলক্ষে তার বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুদের পক্ষ থেকে এ শোক সভার আয়োজন করা হয়।

বদিউজ্জামান সোহাগ বলেন, মামুন ছাত্রলীগ করত। আমাদের মধ্যেও নানা মত ও পথ আছে। নানা প্রতিযোগিতা আছে। মামুন কখনো পক্ষপাতিত্ব করত না। সে তার পেশাদারী দৃষ্টিভঙ্গিতে সব বিশ্লেষণ করত।
স্মৃতিচারণ করে সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, মামুন যখন বাংলা ভিশনে কাজ করত তখন ছাত্রলীগের প্রোগ্রাম কাভারের ব্যাপারে সে হেল্প করত। আমরাও মিডিয়া কাভারেজ সংক্রান্ত কোন যে কোন দরকারে তাকে নক করতাম।

সাংবাদিক মামুন সব সময় হাসিখুশী থাকতেন এমন প্রসঙ্গে বদিউজ্জামান সোহাগ বলেন, এক পর্যায়ে বাংলা ভিশন থেকে তার (মামুন) চাকরি চলে যায়। তখন তার মন খারাপ। তবে সে মন খারাপ দেখাতো না। পরে যোগ দেয় এশিয়া টিভিতে। দেখা হলে আমি দুষ্টুমী করতাম। কখনো তাকে রাগাতে পারিনি। মামুন একুশে টিভিতে যাওয়ার পর রোজ দেখা হতো। মামুন মানেই আনন্দ। সে সব সময় সব কিছু জমিয়ে রাখত।

ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জয়দেব নন্দীর সঞ্চালনায় শোকসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য অনুপম শাহজাহান জয়, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য এসএম কামাল হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএস জাকির হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি রেজানুল জক চৌধুরী শোভন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শারমিন সুলতানা লিলি, সাবেক দফতর সম্পাদক নাসিম আল মোমিন, সাবেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান, সাবেক ছাত্রনেতা শাহাদাত হোসেন সুজন, দৈনিক প্রথম আলোর সিনিয়র রিপোর্টার রাজীব আহমেদ, রিপোর্টার রিয়াদুল করিম, সহপাঠী রুহিনা তাসকিন প্রমুখ।

 

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *