বাংলাদেশি হিসেবে মোসাদ্দেকের রেকর্ড

Breaking News: ক্রিকেট খেলা প্রধান সংবাদ

মোসাদ্দেক ঝড়ে ট্রফি তুলে নিলো বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে করলেন দ্রততম ফিফটি। বাংলাদেশের হয়ে প্রথম দ্রুততম ফিফটি করলেন তিনি। তখন ১৫ বলে ২৬ রান ছিল মোসাদ্দেকের। ২২তম ওভারে বোলিংয়ে আসেন স্পিনার ফ্যাবিয়ান অ্যালেন। ওভারের প্রথম ও দ্বিতীয় বলে টানা দুইটি ছক্কা মারেন হাঁকান মোসাদ্দেক। তৃতীয় বলে চার মারেন তিনি। চতুর্থ বলে আবার ছক্কা হাঁকান। এরপর পঞ্চম বলে ২ রান দিয়ে ব্যক্তিগত অর্ধশত পূরণ করেন মোসাদ্দেক। শেষ বল থেকে এক রান নেন তিনি। এই ওভার থেকে মোসাদ্দেক মোট ২৫ রান নেন। এই হলো মোসাদ্দেক।

বাংলাদেশ বার ফাইনালে এসে হেরেছে। ট্রঢি হাতের কাছে এসেও হাত ফসকে গিয়েছে বার বার। কিন্তু এবার সেই অধরা ট্রফি বাংলাদেশের কাছে এসে ধরা দিলো। তাও আবার বিশ্বকাপকে ফাইনালে রেখে।
ত্রিদেশীয় সিরিজ ও অন্য টুর্নামেন্ট মিলে ২০০৯ সাল থেকে ছয়টি ফাইনাল খেলেও বাংলাদেশ ছয়টিতে হেরেছে। সপ্তমবার ফাইনালে এসে লাকি সেভেন ধরা দিয়েছে বাংলাদেশের কাছে।

শুক্রবার ডাবলিনে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবারের মতো কোনও টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতলো বাংলাদেশ। আর শুরুটা করেছিলেন সৌম্য সরকার। আর শেষ করলেন মোসাদ্দেক হোসেন। মাঝে মুশফিক ঝড়। সবমিলিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পাহাড়সম টার্গেট সহজেই পার করলো টাইগাররা। আর স্বপ্নের সেই ট্রফিটা হাতে তুলে নেওয়ার সুযোগ হলো টিম টাইগারদের।

ক্রিকেট ইতিহাসে এটিই প্রথম ত্রিদেশীয় সিরিজ জয় বাংলাদেশের। সেটাও বিদেশের মাটিতে। তাই বলা যায় বিশ্বকাপের আগে যে এই জয় টাইগারদের আত্মবিশ্বাস বাড়াবে অতিরিক্তি।

ফলে ৭ বল হাতে রেখেই ২১০ রানের টার্গেট টপকে যায় টাইগাররা। আর এর মধ্য দিয়ে প্রথম কোনও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে শিরোপার স্বাদ পেল বাংলাদেশ। ২৪ বলে ৫২ রানে অপরাজিত থাকা মোসাদ্দেকের ইনিংসটি ২টি চার ও ৫টি ছয়ের মারে সাজানো ছিল। পঞ্চম উইকেট জুটি ৭০ রানে অবিচ্ছিন্ন থাকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের গ্যাব্রিয়েল ও রেইফার ২টি এবং অ্যালেন ১টি উইকেট নেন।

দুরন্ত ইনিংসের জন্য ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হন মোসাদ্দেক হোসেন। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের শাই হোপ সিরিজ সেরা হয়েছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ: ২২.৫ ওভারে ২১৩/৪ (তামিম ১৮, সৌম্য ৬৬, সাব্বির ০, মুশফিকুর ৩৬, মিঠুন ১৭, মাহমুদউল্লাহ ১৯*, মোসাদ্দেক ৫২*; নার্স ৩-০-৩৫-০, হোল্ডার ৪-০-৩১-০, রোচ ৫-০-৫৭-০, গ্যাব্রিয়েল ৩-০-৩০-২, রিফার ৩.৫-০-২৩-২, অ্যালেন ৪-০-৩৭-১)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২৪ ওভারে ১৫২/১ (হোপ ৭৪, আমব্রিস ৬৯*, ব্রাভো ৩*; মাশরাফি ৬-০-২৮-০, সাইফ ৫-০-২৯-০, মুস্তাফিজ ৫-০-৫০-০, মোসাদ্দেক ২-০-৯-০, মিরাজ ৪-০-২২-১, সাব্বির ২-০-১২-০)।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *