“ভদ্র” একটি মশার নাম

প্রধান সংবাদ মতামত

আরিফ হাসান:

ঈদে আমার ছোট বোন বাসায় এসছে। ঈদ শেষে ঢাকায় ফিরবে ওর সেমিষ্টার ফাইনাল ডেট দেয়া আছে। ঢাকায় গিয়ে এক্সাম প্রিপারেশন জোরসে নিবে তাই বললো ও.! ঢাকাসহ সারাদেশে ডেংগুর যে অবস্থা ওকে কি আমায় ঢাকায় পাঠাবো.? বলবো যা এক্সাম দিয়ে ভাল রেজাল্ট নিয়ে আয়.! কি বলা উচিত আমার.! যে যাহ,দুচারটা মশা কামড়ালে কিছু হয় না.! এবার ইদ একটি মশা ময় আতংকিত ঈদ! হাসপাতাল ময় ঈদ। চায়ের দোকানে এক মুরুব্বি বললেন- বাবা রে,সব ই কেয়ামতের আলামত।

নামাজ রোজায় মন দাও।দুনিয়া ধ্বংস হবে।ধ্বংস হচ্ছেও।আমাদের দেশে সব অভদ্র মশা তাই লন্ডন থেকে”ভদ্র মশা” আনা হচ্ছে। ভদ্ররা কি এসেছে.? জানিনা…!অনেকেই দেখলাম।মশা নিধনে বাগানের ছাদের ফুলের টব ফুল এলোমেলো হয়েছে জন্য মন তাদের ভীষণ খারাপ। আহা,আমার গুল্লু গুল্লু ফুলগুলো.! ব্যাপার টা এমন। আমার এক ছোট বোনের ডেংগু ধরা পড়েছে। মেয়েটা অনেক স্বপ্ন নিয়ে ঢাকায় এসছিল ভাল একটা কিছু করার আশায়।মেয়েটা মেধাবী। জানিনা এখন কেমন আছে। বসবাসের অযোগ্য এই ঢাকায় মানুষ এত্ত স্বপ্ন খুঁজে পায় কেন.! হ্যাঁ, আমিও খুঁজে পাই। আচ্ছা,এটা কি জেনিটিক্যাল সমস্যা.! কেউই স্বপ্ন দেখেনা আমি রংপুর এ সেটেল হব, সিলেট এ সেটেল হব,পঞ্চগড় এ সেটেল হব.! চিরকুট ব্যান্ডের সেই গানটাই তাহলে ঠিক-“এই শহর যাদুর শহর প্রাণের শহর ঢাকা রে”.!এই ঢাকায় প্রাণ আছে.? তালেবের দোকানের মিষ্টি পান পাওয়া যায়.!যে মাঠ আছে ওখানে গলা ছেড়ে গান গাওয়া যায়.? তাহলে এ শহর প্রাণের শহর স্বপ্নের শহর কেন হয়.? জোঁনাকি জ্বলে সন্ধ্যা রাতে.!

 

ঢাকায় দালান দেখি মস্ত দালান।যারা এই দালানে থাকে তাঁরা সকাল দুপুর কি খায়.! প্রেমিকার ঠোঁটে তারা কিভাবে চুমু দেয়.!এরা কি মাটির ব্যাংকে টাকা রাখে.!আমলা জামলা মামলায় ভরা এই শহরে তাই তো নিধন দরকার। নিধন শুরু হয়ে গেছে হয়তো। ময়মনসিংহ থেকে বাড়ি যাচ্ছি ইদ এ বাসের পাশের সিটের যুবক সা রে গা মা পা এর নোবেল এর গান শুনছে ইউটিউবে। প্রশ্নসূচক বিস্ময় বা আনন্দে জানিনা। তবে সে শুনছে। দেশ থেকে দেশের বাইরে যখন কেউ যায় তখন তার আচার ব্যবহার রীতি প্রকৃতি কথার ধরণ সে যেই দেশ থেকে আসে সে দেশের মানুষের সূচক এর মত কাজ করে।

যাইহোক, আমি কুকুর পছন্দ করি।বিশ্বস্ত হয়।সাপ তো সাপই। তাকে দুধ কলা দেয়ার কি আছে.! নোবেল ভাল শিল্পী নিশ্চয়ই। তারগানে সব “এডিস” গুলো মুগ্ধ হয়ে শুন্যে মিলাক।হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালার মত। ঈদের পর স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় সব গুলোই খুলবে ছেলেমেয়েরা তারণ্যদীপ্ত হয়ে আড্ডায় মেতে উঠবে ক্যাম্পাসগুলতো।
কিন্তু
ডেংগু… আগুন… ধর্ষণ…!

লেখক: আরিফ হাসান।
নাট্যকলা ও পরিবেশনাবিদ্যা বিভাগে কর্মরত।জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়। ত্রিশাল,ময়মনসিংহ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *