ফনির কারণে আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে সাড়ে ১২ লাখ মানুষ

Breaking News: জাতীয় প্রধান সংবাদ বাংলাদেশ

ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কতায় ঝুঁকিপূর্ণ ১৯ জেলায় শুক্রবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ১২ লাখ ৪০ হাজার ৭৯৫ জন আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে। বাকিদেরও আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া্র জন্য স্বেচ্ছাসেবকরা মাইকিং করে জানিয়ে দিচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড় ফনির মূল অংশটি বাংলাদেশের সীমানা থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে ভারতে অবস্থান করছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ। আর এই ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশে মাঝ রাতে আঘাত হানতে পারে বলে জানা গেছে। বাংলাদেশে খুলনা অঞ্চল দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে বলে জানা গেছে।

এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ইতোমধ্যে সারাদেশে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। বরিশাল, ভোলা, চট্টগ্রাম এলাকায় ইতোমধ্যে মাঝারি দমকা হাওয়া বয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

সামছুদ্দিন আহমেদ বলেন, ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে সারাদেশে আজকে সারারাত এমনকি আগামীকালও বাংলাদেশে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া অব্যাহত থাকতে পারে।

এই পরিচালক আরও জানান, এ মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড়টির মূল অংশ সমুদ্রে নেই, এটি বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমে ২০০ কিলোমিটার দূরে ভারতীয় অংশে অবস্থান করছে। কাছেই চলে এসেছে। এটি ওড়িশায় ১৮০ কিলোমিটার বাতাসের গতি নিয়ে আঘাত করেছে, এখন এটি কমে এসেছে। ধীরে ধীরে ভূমির উপর দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ হয়ে কলকাতার কাছ দিয়ে বাংলাদেশের কাছাকাছি এলাকা দিয়ে উত্তর দিকে অগ্রসর হবে।

ফনির ক্ষতি কমিয়ে আনার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফনির বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছেন বলে জানা গেছে। সরকারি সফরে একন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইংল্যান্ডে রয়েছেন। সেখান থেকে তিনি ফনি মোকাবেলায় নির্দেশ দিয়েছেন।

ইতোমধ্যে উপকূলীয় এলাকায় চিকিৎসকদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ওষুধ পত্রও যতেষ্ট রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এদিকে, সেনাবাহিনীর প্রধান জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড়টি  ফনি মোকাবেলায় বাংলাদেশে সেনাবাহনী প্রস্তুত রয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালও শুক্রবার এক অনুষ্ঠানের বলেছেন, ফনি মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে আইশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।
ফনির কারণে ইতোমধ্যে ৪ তারিখের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। এছাড়াও বরিশাল, খুলনা, যশোর এলাকার স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ফনির কারণে নৌ চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। দুটি ফ্লাইটও বাতিল করা হয়েছে। আর এই ফনির কারণে ভারতের ওডিশায় ইতোমধ্যে তাণ্ডব চালিয়েছে ফনি। এ পর্যন্ত তিনজন নিহতের খবর পাওয়া গেছে। আর ফনির কারণে বাগেরহাটে বজ্র পড়ে ছয়জন নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

Spread the love

1 thought on “ফনির কারণে আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে সাড়ে ১২ লাখ মানুষ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *